একটি টেলিফোন সংলাপঃ আমরা কি শিখলাম

প্রশ্নঃ (সকাল ১০টায় টেলিফোন) ভাই কি আসরের পর বাসায় থাকবেন?

উত্তরঃ হ্যাঁ।

প্রশ্নঃ (মাগরিবের আধাঘন্টা পূর্বে টেলিফোন) ভাই, আপনি কোথায়? আমি তো আপনার বাসায়? বেল দিচ্ছি, কেউ দরজা খুলতেছেন না। আপনি তো বলেছিলেন, আসরের পর বাসায় থাকবেন।

উত্তরঃ আপনি তো বলেননি, আপনি মাগরিবের পূর্বে বাসায় আসবেন। আর আসরের পর আর মাগরিবের পূর্ব-একই কথা নয়। আসর থেকে মাগরিবের দূরত্ব আড়াই ঘন্টা। আমি তো মানসুরাতে আপনার বাসার পাশে-আল মীরাতে।

প্রশ্নঃ (মাগরিবের নামাযের ৫মিনিট পূর্বে টেলিফোন) ভাই আপনি কোথায়? আমি তো আল মীরার ভিতরে। আপনাকে তো দেখতেছিনা।

উত্তরঃ সরি! আপনি তো আমাকে আল মীরাতে আপনার জন্য অপেক্ষা করতে বলেননি। আমি তো এখন আমার বাসায় চলে এসেছি। মাগরিবের নামাযের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

প্রশ্নকর্তাঃ ভাই, আপনার পিছনে ঘুরতে ঘুরতে আজকের বিকালটাই শেষ হয়ে গেছে। আমি ওয়াকরা থেকে এসেছি-আপনার বাসায়। আপনাকে খুঁজতে খুঁজতে পেরেশান হয়ে গেছি।

উত্তরদাতাঃ ওয়াকরাতে কখন গিয়েছিলেন? কোথায় গিয়েছিলেন? আমাকে সকালে যখন ফোন করেন, তখন তো আমিও ওয়াকরাতে ছিলাম।

প্রশ্নকর্তাঃ ভাই, আপনি কেন বললেন না যে, আপনি ওয়াকরাতে আছেন। আমি তো তখন ওয়াকরাতে ছিলাম। যাই হোক ভাই, আপনার ৫০টি রিয়াল আমার কাছে-ওটা পরিশোধ করতে চাই। কিভাবে দিতে পারি?

উত্তরদাতাঃ ওটার জন্য ফোন করার দরকার ছিল না। ম্যাসেজ দিলেই হতো। আপনি এখন কোথায়? আপনার বাসায় হলে আব্দুর রহমান ভাইকে দিন।

উত্তরদাতাঃ আব্দুর রহমানকে-ভাই, আপনি যে ৫০ রিয়াল আমার কাছে পাবেন, তা ঐ ভাই এখন আপনাকে দেবেন। পাওয়ার পর আমাকে একটা ম্যাসেজ দেবেন।

উত্তরদাতাঃ প্রশ্নকর্তাকে-ভাই ৫০ রিয়াল আব্দুর রহমান ভাইকে দিয়ে দেবেন। তাহলে আমি পেয়ে যাবো।

কিছুক্ষণ পর আব্দুর রহমান ভাইয়ের ম্যাসেজঃ আপনার দেয়া ৫০ রিয়াল বুঝিয়া পাইলাম।

এই আলোচনাটার মাধ্যমে আমরা কি জানলাম বা কি শিখলাম???

লেখাটি আপনার ভাল লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.