বাড়ীর চার দেয়ালের বাহিরে বের হতে পারলাম না

আমার লিখা আর্টিক্যাল লেখালেখি

বাড়ীর চার দেয়ালের বাহিরে বের হতে পারলাম না

ব্লগের মাধ্যমে যাদের সাথে পরিচয়, তাদের প্রায় সকলেই জানেন যে আমি একজন প্রবাসী এবং বর্তমানে অসুস্থ অবস্থায় বাংলাদেশে অবস্থান করছি।

বিভাগীয় শহরে বাসা নিয়ে থাকি। গ্রামের বাড়ীতে অবস্থানকারী স্বজনেরা খুবই টেনশন মুক্ত। কারণ মাত্র কদিন আগে গ্রামে সবচেয়ে আমানতদার লোকটাকে রাতের আধারে ধরে নিয়ে গেছে জামায়াত করার অপরাধে মিথ্যা মামলা দিয়ে।

প্রায় দেড়মাস পর গ্রামরে বাড়ীতে গেলাম। এর পর——

১. গ্রামে বাজারে মাত্র ৫মিনিটে যাদের সাথে দেখা হলো, তারা সবাই নসিহত করলেন বাজার থেকে বাড়ী চলে যেতে।

২, একজন অত্যন্ত আন্তরিক শুভাকাংখী জানতে পেরে ফেন করে বললেন, আমি যেন অতি তাড়াতাড়ি শহরের বাসায় ফিরে যাই। দেশের অবস্থা নাকি খুব খারাপ। গ্রামে বাড়ী থাকা উচিত নয়।

৩. ছোট বোন অত্যন্ত আঁকুতি জানিয়ে বললো, আমি যেন চার দেয়ালের বাহিরে না যাই।

৪. একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত এক আত্মীয় যখন আমাকে দেখলেন, তখন তার হৃদস্পন্দন রীতিমতো বেড়ে গেল। এবং তিনি আতংকের সুরে বললেন, এই সময়ে তোমার বাড়ী আসা একদম উচিত হয়নি।

৫. রাত ১০টার দিকে এক আত্মীয় টর্চ লাইট জালিয়ে আমার বাড়ীতে হাজির। বললেন, তোমার বাড়ীতে থাকা নিরাপদ নেই। আমি তোমাকে নিতে এসেছে। অর্থাৎ রাতের বেলার সময়টা যেন আমি তাদের বাড়ীতে থাকি।

৬. মসজিদে হাজির হলাম। আশপাশ বাড়ীর চাচা দাদারা কানে কানে বললেন, তুমি মসজিদে না আসলেও চলবে।শত্রুর ভয় থাকলে জামায়াতে হাজির না হলেও চলে।

অতএব,

আমি আর কি করি! আমি ৩দিন গ্রামে কাটিয়ে আসলাম একদম বাড়ীর চার দেয়ালের ভিতর।

২০১৩, ২৩ ফেব্রুয়ারী

লেখাটি আপনার ভাল লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.