করোনা ভাইরাসের কারণে চলমান অবরোধ ধীরে ধীরে তুলে নেয়ার প্রথম ধাপ শুরু হবে ১৫ জুন ২০২০ তারিখ থেকে। এই ধাপের অংশ হিসাবে যারা কাতার থেকে কাতারে প্রবেশ করতে চান, তাদের জন্য শর্ত হচ্ছেকাতারে প্রবেশ করা মাত্র নিজ খরচে নির্ধারিত হোটেলে দুই সপ্তাহের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

কাতার এয়ারওয়েজ এই ধরণের যাত্রীদের (নাগরিক ও বাসিন্দাদের) জন্য নানাবিধ প্যাকেট ঘোষনা করে তা তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে।

এই সময়ে যারা কাতারে আসবেন, তারা কাতার এয়ারওয়েজ বা অন্য যে কোন বিমান সংস্থার উড়োজাহাজ ব্যবহার করতে পারবেন। তবে তাকে সরকার অনুমোদিত হোটেল তথা যে সব হোটেলকে কোয়ারেন্টাইনের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে, সেই সব হোটেল বুকিং করার জন্য ডিসকভার কাতার এর মাধ্যমে বুকিং নিশ্চিত করতে হবে। কোন প্যাসেঞ্জার নিজের মতো করে কোন হোটেল বুকিং করলে চলবে না।


মেয়াদ উত্তীর্ণ আইডিঃ

কাতারে বাহিরে অবস্থান করার সময়ে বা কোয়ারেন্টাইনে থাকা অবস্থায় যদি কারো আইডির মেয়াদ শেষ হয়ে যায়, এতে কোন সমস্যা নাই। আপনাকে কাতারে প্রবেশের অনুমতি প্রদান করা হবে এবং কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আপনি অনায়াসে আইডি রিনিউ করতে পারবেন।

কাতারে প্রবেশের পর সরকার অনুমোদিত কোয়ারেন্টাইনে গমন এবং সেখানে ১৪ দিন মেয়াদে অবস্থানের পরই নির্ধারিত হবে যে, আপনি কাতারে প্রবেশ করতে পারবে কি না?


কারা কাতারে প্রবেশ করতে অনুমতি প্রাপ্ত এবং কোয়ারেন্টাইন শর্ত সমূহ কি, তা নিম্নে প্রদত্ত হলোঃ


কাতারের নাগরিক যারা ১৪ জুনের মধ্যে কাতারে পৌছবেনঃ

যারা কাতারের নাগরিক এবং যারা ১৪ জুন পর্যন্ত কাতারে পৌছে যাবেন, তাদেরকে কোয়ারেন্টাইনের জন্য কোন হোটেল বুকিং করতে হবে না। বরং হামাদ ইন্টারন্যাশনাল এয়াপোর্টে পৌছার পর সরকারী পরিবহণে করে তাদেরকে সরকারী কোয়ারেন্টাইনে নিয়ে যাওয়া হবে। তাদের হোটেল খরচ সরকার বহন করবে।


কাতারী নাগরিক যারা ১৫ জুন থেকে ৩১ আগষ্ট-এর মধ্যে কাতার পৌছবেনঃ

কাতারের নাগরিক যারা ১৫ জুন থেকে ৩১শে আগষ্টের মধ্যে কাতার পৌছবেনতাদেরকে তাদের টিকেট ও কোয়ারেন্টাইনের খরচ নিজেদের বহন করতে হবে এবং ডিসকভার কাতারের মাধ্যমে তাদেরকে বুকিং নিশ্চিত করতে হবে। ১৪ জুন রবিবার থেকে এতদ্বসংক্রান্ত প্যাকেজ গুলো বিক্রয় শুরু হবে। হামাদ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে পৌছে তারা এই বুকিং করতে পারবেন। 

উল্লেখ্য যে, ১ আগষ্ট পর্যন্ত কেবলমাত্র কাতারের নাগরিকরা কাতারে প্রবেশের অনুমতি পাবেন।


কাতারের নাগরিক ও কিউআইডি হোল্ডার যারা ১-৩১ আগষ্টের মধ্যে কাতার ফিরবেনঃ

সকল কাতারী নাগরিক এবং কাতারের রেসিডেন্ট পারমিট (কিউআইডি) হোল্ডার ডিসকভার কাতারের সাহায্যে টিকেট, বৈধ কিউআইডি এবং নিজ খরচে হোটেল কোয়ারেন্টাইন রিজার্ভেশন পূর্বেই বুক করবেন। ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন প্যাকেজ নিশ্চিত না করে ফ্লাইটে আরোহন করতে পারবেন না।


৩১শে আগষ্ট-এর পর যারা কাতারে প্রবেশ করবেনঃ

আপনার ভ্রমনের তারিখ নিকটবর্তী না হওয়া অবধি আপনি অপেক্ষা করুন। তাড়াহুড়া করে আপনার টিকেট ও আনুসাঙ্গিক বিষয় কনফার্ম করবেন না। হতে পারে কোয়ারেন্টাইন শর্তাবলীতে কোন ধরণের পরিবর্তন আসতে পারে।

কাতারের স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী আপনাকে কাতারে প্রবেশের পর ১৪ দিন নিজ খরচে নির্দিষ্ট হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে অবস্থান করতে হবে। কোন অবস্থায়ই আপনি আপনার বাড়ীতে থাকতে পারবেন না। এই ব্যাখ্যাটি ডিসকভার কাতারের পক্ষ থেকে করা হয়েছিল।

১৫ জুন থেকে ৩০ জুলাই এর মধ্যে যারা কাতারে ফেরবেন, তাদের বুকিং ডিসকভার কাতার এর মাধ্যমে আগামী ১৪ জুন রবিবার থেকে শুরু হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে টেলিফোন, ই-মেইল অথবা কাতারে আসার পর হামাদ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে বুকিং সম্পন্ন করা যাবে। আর এজন্য আপনার একটি কনফার্ম টিকেট এবং বৈধ পাসপোর্ট বিবরণী প্রদান করতে হবে। 

আর ১ আগষ্ট থেকে যারা কাতারে ফিরবেন তাদের জন্য জন্য ডিসকভার কাতার এর ওয়েবসাইটে ২৫ জুন থেকে নানাবিধ প্যাকেট বিক্রয়ের জন্য পাওয়া যাবে। যা সম্পাদন করতে বৈধ কিউআইডি অথবা পাসপোর্ট-এর প্রয়োজন হবে। ডিসকভার কাতার জানিয়েছে, এই বুকিং সংশোধন অথবা কেনসেল করার জন্য কোন জরিমানা বা চার্জ প্রদান করতে হবে না।

কাতারে প্রত্যাবর্তনকারীগন তাদের পছন্দ ও সামর্থ অনুযায়ী বিভিন্ন ধরণের তারকা চিহ্নিত হোটেল নির্বাচন করতে পারবেন। ডিসকভার কাতারে ১৪ই জুন থেকে নানাবিধ প্যাকেজ সুবিধাগুলো প্রদর্শিত হবে। সকল হোটেল রিজার্ভেশন পূর্ণ বোর্ড ভিত্তিক হবে। যার ফলে রিজার্ভেশনের সাথে সকালের নাস্তা, দুপুর ও রাতের খাবার সংযুক্ত থাকবে। খাবার হোটেলের সংরক্ষিত রেস্টুরেন্টে পরিবেশিত হবে না। বরং নিজ নিজ রুমের দরজায় সরবরাহ করা হবে।

হোটেল কোয়ারেন্টাইনে কেবলমাত্র প্রত্যক্ষ রিলেটিভসরা (যেমনঃ স্বামী-স্ত্রী-সন্তান) একই রুম শেয়ার করার সুবিধা পাবেন। এক্ষেত্রে ২ এডাল্ট এবং ১ চাইল্ড একই রুমে থাকার সুবিধা পাবেন। চাইল্ড-এর বয়স ৬ বছরের নিচে হতে হবে। হোটেল কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের রুমের বাহিরে যাওয়া, বাহিরে কারো সাথে সাক্ষাৎ করা বা বাহির থেকে অর্ডার করা খাবার সংগ্রহের সুযোগ থাকবেনা।

যে সব হোটেল কোয়ারেন্টাইন সুবিধা প্রদান করবে, সে সব হোটেল কাতার ক্লিন কর্মসূচীর সকল নিয়ম মেনে চলবে। কাতার ক্লিন হচ্ছে ন্যাশনাল ট্যুরেজম কাউন্সিল, স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় এবং হসপিটালিটি এন্ড টুরিজম সেকটরের একটি সম্মিলিত প্রয়াস।

অপর পক্ষে কোয়ারেন্টাইনের জন্য সংরক্ষিত হোটেলের স্টাফকে নিয়মিত Covid-19 এর টেস্ট করা হবে এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের গাইড লাইল অনুসরণ করে চলবে। একটি মেডিক্যাল টিম সার্বক্ষনিক (২৪/৭) হোটেলে অবস্থান করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here