আমার লিখা আর্টিক্যাল লেখালেখি

যার যতটুকু মর্যাদা ততটুকু দেইঃ ভালবাসা হোক নিয়ন্ত্রিত

যার যতটুকু মর্যাদা, তাকে ততটুকু মর্যাদাই দিতে হয়। তার চেয়ে কমবেশী করার কোন এখতিয়ার আমাদের নাই।

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালার মর্যাদাঃ এই মর্যাদার সাথে কোন তুলনা চলে না। তার মর্যাদা ক্ষমতা অধিকারের সমকক্ষ কাউকে যেমন করা যাবেনা-তা চিন্তাও করা যাবেনা।

রাসূল সা. এর মর্যাদাঃ তাকে আমরা ভালবাসবো, সম্মাণ দেবো-দুনিয়ার সকল মানুষের চেয়ে বেশী। এমন কি আমাদের পিতামাতার চেয়ে বেশী সম্মাণ দিতে হবে ও ভালবাসতে হবে।তাই বলে তাকে সম্মাণ দিতে গিয়ে আল্লাহর সমকক্ষ বানিয়ে ফেলবো না।

সাহাবায়ে কিরামের মর্যাদাঃ আমাদের ও রাসূল সা. এর সাথে সম্পর্কের সেতু বন্ধন হচ্ছেন সাহাবায়ে কিরাম। দুনিয়ার যে কোন মানুষের চেয়ে উনাদের মর্যাদা সবচেয়ে বেশী। তাদের পায়ের ধুলিকনার সমকক্ষ নেই দুনিয়ার কোন মানুষ। কিন্তু তাদেরকে মর্যাদা দিতে গিয়ে আমরা আমাদের রাসূল সা. এর সমকক্ষ বানিয়ে নেবো না।

আমাদের উস্তাদ ও আকাবিরগনঃ যাদের মর্যাদা এমন-যেন অন্ধকারে তারা একেকটি মশাল। এই সব মশালের উপস্থিতির কারণেই আমরা আলোকিত। তাদের মর্যাদা অতুলনীয়। কিন্তু তাদেরকে মর্যাদা দিতে গিয়ে সাহাবায়ে কিরাম বা নবীদের সমান মনে করবো না।

জাতির দূর্ভাগ্য যে

আমরা আমাদের নেতা আর উস্তাদদের নামে এতো বেশী প্রশংসা করি যে, তা সাধারণ সীমা ছাড়িয়ে যায়। দৈনন্দিন জীবনে আমরা নেতাদের নাম সচেতন ভাবে যতবার উল্লেখ করি, আল্লাহর নাম সচেতন ভাবে ততবার নেই না।

আমরা আমাদের উস্তাদ আর আকাবিরদের এতো প্রশংসা করি যে, তাও সাধারণ সীমা ছাড়িয়ে যায়। দৈনন্দিন জীবনে আমরা উস্তাদ ও আকাবিরদের নামে যত প্রশংসা করি রাসূল সা. বা সাহাবায়ে কিরামদের নামে ততবার
প্রশংসা করতে পারিনা।

যদি আমাদেরকে বলা হয় যে,

১.শেখ মুজিব, জিয়াউর রহমানের নামে প্রশংসা করে ৫মিনিট বক্তব্য দিন। আমাদের সময় শেষ হয়ে যাবে-প্রশংসা শেষ হবে না।

২. মওদূদী বা মাদানীর নামে প্রশংসা করে ৫মিনিটি বক্তব্য দিন। আমাদের সময় শেষ হয়ে যাবে-প্রশংসা শেষ হবে না।

৩. ফুলতলী বা চরমোনাইয়ের নামে প্রশংসা করে ৫মিনিট বক্তব্য দিন। আমাদের সময় শেষ হয়ে যাবে-প্রশংসা শেষ হবে না।

যদি আমাদেরকে বলা হয় যে,

১. আল্লাহর রাসূল সা. এর নামে প্রশংসা করে ৫মিনিট বক্তব্য দিন। আমাদের পায়জামা গরম হয়ে যাবে। আড়াই মিনিটের মাথায় আমাদের কথা শেষ হয়ে যাবে।

২. হযরত আবু বকর বা উমর রা. এর নামে প্রশংসা করে ৫মিনিট বক্তব্য দিন। আমাদের পায়জামা গরম হয়ে যাবে। আড়াই মিনিটের মাথায় আমাদের কথা শেষ হয়ে যাবে।

অতএব, 

আমাদের ভালবাসার মাপকাঠি বদল করা দরকার। আমাদের প্রশংসা করা, মর্যাদা প্রদানটাও নিয়ন্ত্রিত হওয়া দরকার।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published.

মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম চান্দগ্রাম বড়লেখা মৌলভী বাজার। উম গুয়াইলিনা, দোহা-কাতার।